1. info@voicectg.com : Voice Ctg :
বুধবার, ২৫ মে ২০২২, ০৬:৫৮ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
রোহিঙ্গা ক্যাম্পে পুলিশের অভিযানে দেশীয় অস্ত্র ও ইয়াবাসহ আটক ২ – ভয়েস চট্টগ্রাম ন্যাটো-রাশিয়া পারমাণবিক যুদ্ধে প্রথম ঘণ্টায় যা হতে পারে। কক্সবাজারে স্বামী-স্ত্রী পরিচয় দিয়ে হোটেলে ওঠা তরুণীর মৃত্যু। আকাশে ওড়ার ১৫ মিনিটের মাথায় নভোএয়ারের জরুরি অবতরণ। এবার ঘুমধুমের টমটম চালক আনিসের ঝুড়িতে মিললো ৬১১২ পিস ইয়াবা। ১৭ মে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও গণতন্ত্রের অগ্নিবীণার প্রত্যাবর্তন দিবস -তথ্যমন্ত্রী। বান্দরবান সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাবরিনা আফরিন মুস্তাফার বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত। আওয়ামীলীগের মাঠজরীপে আছহাব উদ্দিন মেম্বার আবারো জনপ্রিয়তার শীর্ষে। মেয়ে তুমি জম্মেই অভিশপ্ত – লেখক: বীর মুক্তিযোদ্ধা ডাঃ কাজল দাশ, সম্পাদক ভয়েস চট্টগ্রাম উখিয়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ইয়াবাসহ এক নারী মাদককারবারি আটক।

নৌঘাঁটির পাহারায় কৃষ্ণসাগরে ডলফিন বাহিনী মোতায়েন রাশিয়ার।

আন্তর্জাতিক নিউজ ডেস্কঃ
  • প্রকাশিত: শুক্রবার, ২৯ এপ্রিল, ২০২২

 

কৃষ্ণ সাগরের সেভাস্তোপল নৌ ঘাঁটিতে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত সামরিক ডলফিন মোতায়েন করে রাশিয়া। যুক্তরাষ্ট্রের নেভাল ইনস্টিটিউটের (ইউএসএনআই) পর্যালোচনায় এমন তথ্য উঠে এসেছে। এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ান।

পানির নিচ দিয়ে সম্ভাব্য আক্রমণ থেকে রক্ষায় এই পদক্ষেপ নেয় মস্কো। প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত সামরিক ডলফিন দুটি গত ফেব্রুয়ারিতে সেভাস্তোপল ঘাঁটিতে স্থানান্তরিত করা হয় বলে মার্কিন প্রতিবেদনে এসে।

বন্দরের নৌ ঘাঁটির স্যাটেলাইট চিত্র পর্যালোচনা করে মার্কিন নৌবাহিনীর নেভাল ইনস্টিটিউট জানিয়েছে, ফেব্রুয়ারিতে ইউক্রেনে আক্রমণ শুরুর দিকে রুশ সমুদ্রসীমায় দুটি ডলফিন মোতায়েন করা হয়। যদিও এ বিষয়ে মস্কোর কাছ থাকে কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

যুদ্ধে আগেও প্রশিক্ষিত ডলফিন ব্যবহারের ইতিহাস রয়েছে রাশিয়ার। জলজ এই প্রাণীটি বিভিন্ন বিপজ্জনক বস্তু উদ্ধার ও শত্রুপক্ষের ডুবুরিদের অবস্থান শনাক্তে ব্যবহার করা হয়।

ক্রিমিয়ার দক্ষিণে অবস্থিত সেভাস্তোপল নৌ ঘাঁটিটি রুশ সামরিক বাহিনীর জন্য কৌশলগতভাবে খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। ২০১৪ সালে ক্রিমিয়া ইউক্রেনের কাছ থেকে দখল করে নেয় মস্কো।

ইউএসএনআই পর্যালোচনায় বলা হচ্ছে, সামরিক ডলফিন মোতায়েনের মূল উদ্দেশ্যই হতে পারে পানির নিচে বিস্ফোরক দ্রুত শনাক্ত করা। শত্রুরা পানির নিচ জাহাজে বড় ধরনের হামলার ইতিহাস রয়েছে।

শুধু রাশিয়া নয় ইউক্রেনও সেভাস্তোপলের কাছে অ্যাকুরিয়ামে ডলফিন প্রশিক্ষণ দেয় বলে জানা গেছে। শীতল যুদ্ধের সময় যুক্তরাষ্ট্র ও সোভিয়েত ইউনিয়ন সামরিক ডলফিনের ব্যবহারের প্রচলন শুরু করে। পানির নিচে শক্তিশালী মাইনের মতো বিস্ফোরক শনাক্তে ডলফিন প্রশিক্ষণ দেয়া হতো তখন।

আরো সংবাদ পড়ুন

ওয়েবসাইট নকশা প্রযুক্তি সহায়তায়: ইয়োলো হোস্ট

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত