1. info@voicectg.com : Voice Ctg :
বুধবার, ২৫ মে ২০২২, ০৭:১৪ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
রোহিঙ্গা ক্যাম্পে পুলিশের অভিযানে দেশীয় অস্ত্র ও ইয়াবাসহ আটক ২ – ভয়েস চট্টগ্রাম ন্যাটো-রাশিয়া পারমাণবিক যুদ্ধে প্রথম ঘণ্টায় যা হতে পারে। কক্সবাজারে স্বামী-স্ত্রী পরিচয় দিয়ে হোটেলে ওঠা তরুণীর মৃত্যু। আকাশে ওড়ার ১৫ মিনিটের মাথায় নভোএয়ারের জরুরি অবতরণ। এবার ঘুমধুমের টমটম চালক আনিসের ঝুড়িতে মিললো ৬১১২ পিস ইয়াবা। ১৭ মে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও গণতন্ত্রের অগ্নিবীণার প্রত্যাবর্তন দিবস -তথ্যমন্ত্রী। বান্দরবান সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাবরিনা আফরিন মুস্তাফার বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত। আওয়ামীলীগের মাঠজরীপে আছহাব উদ্দিন মেম্বার আবারো জনপ্রিয়তার শীর্ষে। মেয়ে তুমি জম্মেই অভিশপ্ত – লেখক: বীর মুক্তিযোদ্ধা ডাঃ কাজল দাশ, সম্পাদক ভয়েস চট্টগ্রাম উখিয়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ইয়াবাসহ এক নারী মাদককারবারি আটক।

উখিয়ায় ছমুদার শেষ আশ্রয়স্থলে রোহিঙ্গার শেড, বাঁধা দেওয়ায় গুম।

এম এ রহমান সীমান্ত বিশেষ প্রতিনিধি উখিয়াঃ
  • প্রকাশিত: সোমবার, ২৮ মার্চ, ২০২২

 

কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলার পালংখালী ইউনিয়নের ১২ নাম্বার রোহিঙ্গা ক্যাম্পে নতুন করে শেড নির্মাণে বাঁধা দেওয়ায় স্থানীয় এক নারীকে ৩দিন ধরে অজ্ঞাত স্থানে আটকিয়ে রাখার অভিযোগ উঠেছে সংশ্লিষ্ঠ ক্যাম্প ইনচার্জ (সিআইসি)’র বিরুদ্ধে। এ নিয়ে স্থানীয়দের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

সুত্রে জানা যায়, ২০১৭ সালের ২৫ আগস্টের পরে মানবিকতার পরিচয় দিয়ে নিজ বসতঘরের আঙ্গিনায় রোহিঙ্গা বসতি স্থাপন করে দেয় পালংখালী ইউনিয়নের ঘোনারপাড়া এলাকার হতদরিদ্র ফরিদ আলমের স্ত্রী ছমুদা খাতুন (৪০)। সম্প্রতি অবশিষ্ঠ জায়গায় রোহিঙ্গাদের জন্য নতুন শেড নির্মাণ কাজ শুরু করে ক্যাম্প ইনচার্জ (সিআইসি) রবিন্দ্র চাকমা। এতে সে বাঁধা দিতে গেলে গত ২৫ মার্চ সকাল ৯টায় তাকে ক্যাম্প পুলিশ আটক করে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যায়।

পালংখালীর ইউনিয়নের বাসিন্দা গণমাধ্যমকর্মী নুরুল বশর বলেন, আমরা অনেক মানবিকতা নিয়ে রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়েছিলাম। কিন্তু তারা এখন আমাদের উপর নির্যাতন শুরু করেছে। বিশেষ করে ক্যাম্পে নিয়োজিত প্রশাসন রোহিঙ্গাদের পক্ষ নিয়ে স্থানীয় লোকজনকে হয়রানী করছে। ছমুদা খাতুনকে গত ৩দিন ধরে আটকিয়ে রেখে অমানবিকতার পরিচয় দিয়েছে সিআইসি রবিন্দ্র চাকমা। দ্রুত তাকে ছেড়ে দেওয়া না হলে অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটার সম্ভাবনা রয়েছে।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান এম.গফুর উদ্দিন চৌধুরী বলেন, রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়ে স্থানীয়রা কি অপরাধ করেছে? কারণ সম্পর্কে তিনি আরো বলেন, এক নিরীহ নারীকে গত ৩দিন ধরে আটকিয়ে রেখেছে ক্যাম্প ইনচার্জ (সিআইসি) রবিন্দ্র চাকমা। এনিয়ে তাদের সাথে অনেকবার যোগাযোগ করার পরেও তাকে ছেড়ে দেয়নি। তিনি এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন বলেও জানান।

এই ঘটনার পর থেকে বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সিআইসি ও ক্যাম্প পুলিশের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাতে দেখা গেছে স্থানীয়দের।

আরো সংবাদ পড়ুন

ওয়েবসাইট নকশা প্রযুক্তি সহায়তায়: ইয়োলো হোস্ট

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত